ঘন কুয়াশায় পদ্মায় ফেরি পারাপার বিঘ্নিত

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

ঘন কুয়াশায় পদ্মার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। মঙ্গলবার ভোরে দুই নৌ-রুটে দীর্ঘসময় ফেরি বন্ধ ছিল। এতে ঘাটে আটকা পড়ে যাত্রীবাহী কয়েকশ যানবাহন। এতে কনকনে শীতের মধ্যে যাত্রীরাও দুর্ভোগে পড়েন।শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি:  ঘন কুয়াশার কারণে এ নৌ রুটে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরি চলাচল বন্ধের কারণে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০টিসহ উভয় প্রান্তে প্রায় ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় আছে।মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুটি রো রো সহ ১৪টি ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এর আগে ঘণ কুয়াশার কারণে  ভোর ৫টায় ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাটের উপ-মহাব্যবস্থাপক সফিক আহম্মেদ জানান, কুয়াশা কেটে গেলে সকাল ১০টা থেকে ১৪টি ফেরি যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে পারাপার শুরু করেছে। এছাড়া মাঝ পদ্মায় নোঙরে থাকা ৭টি ফেরি গন্তব্যে পৌঁছে গেছে। বর্তমানে শিমুলিয়া ঘাটে ২৫০ যানবাহন পারের অপেক্ষায় আছে।দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া: বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপাক মাহবুবুর রহমান জানান, কুয়াশার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে রাত ৩টার দিকে পাটুরিয়ার সঙ্গে ফেরি পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় তিনটি ফেরি মাঝ নদীতে আটকা পড়ে। কুয়াশা কমে এলে সকাল ১০টার দিকে আবার ফেরি চলাচল শুরু হয়। কিন্তু ততক্ষণে দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় পাঁচশ গাড়ির দীর্ঘ লাইন পড়ে যায়।

Recommended For You

About the Author: admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *